যৌন জীবনে পুরুষের দুর্বলতার কারণ ও তার প্রতিকার

অনেক পুরুষ অকালেই হারিয়ে ফেলছেন নিজের সক্ষমতা, উঠতি বয়সের যুবকরা রীতিমতো হতাশ হয়ে পড়ছেন। বাড়ছে দাম্পত্যে অশান্তি, সন্তানহীনতার হার। এবং সত্যি বলতে কি বাড়ছে ডিভোর্সও।

কিন্তু কারণ কি পুরুষদের এই ক্রমশ শারীরিকভাবে সক্ষম বা দুর্বল হয়ে যাওয়ার পেছনে? কারণ লুকিয়ে আছে আমাদের বর্তমানের আধুনিক জীবনযাত্রার মাঝেই।

হ্যাঁ, আপনার প্রতিদিনের স্ট্রেসভরা অস্বাস্থ্যকর জীবন, আপনার নিজের কোন একটা ভুলই হয়তো আপনাকে ক্রমশ ঠেলে দিচ্ছে পুরুষত্বহীনতার দিকে। কেন এমন হচ্ছে সেটা জানার আগে জানতে হবে পুরুষের একান্ত দুর্বলতাগুলো কী কী বা কেমন হতে পারে।

শারীরিক অক্ষমতা বা দুর্বলতার বিষয়টিকে মোটামুটি ৩ ভাগে ভাগ করা যেতে পারে-

১)ইরেকশন ফেইলিউর : পুরুষ লিঙ্গের উত্থানে ব্যর্থতা।

২)পেনিট্রেশন ফেইলিউর : লিঙ্গের যোনিদ্বার ছেদনে ব্যর্থতা, বা যোনিতে প্রবেশের মত পর্যাপ্ত উথিত না হওয়া

৩)প্রি-ম্যাচুর ইজাকুলেশন : সহবাসে দ্রুত বীর্য-স্খলন, তথা স্থায়িত্বের অভাব।
থাকতে পারে অনেকগুলো কারণ

ছবি

 

 

প্রাকৃতিক বা শারীরিক কারণগুলোর মাঝে মুখ্য হলো- ডায়াবেটিস, লিঙ্গে জন্মগত কোন ত্রুটি, সেক্স হরমোনের ভারসাম্যহীনতা, গনোরিয়া বা সিফিলিসের মত যৌনরোগ ইত্যাদি।
প্রাকৃতিক শারীরিক সমস্যা ছাড়াও প্রচণ্ড কাজের চাপ, মানসিক অশান্তি, দূষিত পরিবেশ, ভেজাল খাওয়া দাওয়া, কম বিশ্রাম ও ব্যায়াম ছাড়া অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ইত্যাদি অনেক কারণই আছে ক্রমশ যৌন সক্ষমতা হারিয়ে ফেলার পেছনে।
আবার অতিরিক্ত যৌন সম্পর্কে যাওয়া, অতিরিক্ত মাস্টারবেট বা হস মৈথুন করা, যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য হাবিজাবি ওষুধ সেবন ইত্যাদি কারণকে অবহেলা করলেও চলবে না। এছাড়া বয়স জনিত অসুস্থতা, সঙ্গিনীর সাথে বয়সের পার্থক্য বা সঙ্গিনীকে পছন্দ না করা, এইডসভীতি, পর্যাপ্ত যৌন জ্ঞানের অভাব, ত্রুটিপূর্ণ যৌনাসনও অক্ষমতা বা দুর্বলতার জন্য দায়ী হতে পারে।
কী করবেন?
প্রথমেই যা করবেন, সেটা হলো একজন ভালো ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন। লজ্জা না করে নিজের সমস্ত সমস্যা খুলে বলুন ও ডাক্তারের পরামর্শ মত প্রয়োজনীয় সকল চিকিৎসা নিন। এতে লজ্জার কিছুই নেই। একটাই জীবন। লিজ্জার চাইতে নিজেকে সুস্থ ও সক্ষম রাখা জরুরী।
আপনার ডায়াবেটিস থাকলে প্রয়োজনীয় সকল নিয়ম কানুন মেনে চলুন।
নিজের জীবনধারাকে একটি স্বাস্থ্যকর জীবনে বদলে ফেলুন। নিয়মিত স্বাস্থ্যকর ও পুষ্টিকর খাবার খান, ব্যায়াম করুন, রাতে পর্যাপ্ত ঘুমান, চেষ্টা করে কাজের চাপের মাঝেও বিশ্রাম নিতে। আপনার শরীর যখন সুস্থ ও সক্ষম থাকবে, যৌনজীবনও থাকবে সুন্দর।
সঙ্গীর সাথে রোমান্টিক জীবনের উন্নতি করুন। এক ঘেয়ে যৌন জীবনে নানান রকমের চমক ও আনন্দ নিয়ে আসুন। তাঁকেও বিষয়টি বুঝিয়ে বলুন যে নতুন চমক এলে আপনার মানসিকভাবে সাহায্য হবে। রোমান্টিক বেডরুম, আকর্ষণীয় অন্তর্বাস, সেক্স টয় ইত্যাদি এসব ক্ষেত্রে কাজে আসতে পারে।
যদি সঙ্গীকে অপছন্দ করার কারণে সমস্যা হয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে চেষ্টা করুন সঙ্গীকে ভালবাসতে। তার সাথে দূরে কোথাও নিরিবিলি বেড়াতে যান, তাঁকে গভীর ভাবে জানার চেষ্টা করুন।
আস্তে আস্তে তার প্রেমে পড়ার চেষ্টা করুন। মানসিকভাবে প্রেমে পরলে শরীরটাও সাড়া দেবে। একটা জিনিষ মনে রাখবেন, বাস্তবের নারীর সাথে সিনেমার নায়িকা বা পর্ণ স্টারদের মিল খুঁজতে যাবেন না। নিজের দিকে তাকান, নিজের সাধারণত্ব দেখুন। দেখবেন, সঙ্গীকেও আর খারাপ লাগছে না।
কী করবেন না?

আরও পড়ুন (বিয়ের পর কতটা বদলে যায় মানুষ )

অতিরিক্ত মাস্টারবেট করার অভ্যাস অবিলম্বে ত্যাগ করুন। মাঝে মাঝে মাস্টারবেট অবিবাহিত পুরুষদের জন্য খারাপ কিছু নয়, তবে সেটা মাঝে মাঝেই ভালো। আর যাদের স্ত্রী আছে তাঁরা স্ত্রীর সাথেই যৌনজীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠুন।
যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য হাতুড়ে ডাক্তারদের শরণাপন্ন হবেন না বা কোন টোটকা ব্যবহার করবেন না। কোন তেল বা ওষুধ কিছুই ব্যবহার করবেন না হাতুড়েদের কথায় প্রভাবিত হয়ে।
বাজারে সাময়িকভাবে যৌন ক্ষমতা বাড়ানোর কিছু ওষুধ পাওয়া যায়, যেগুলো সেবনে ২৪ ঘণ্টার জন্য যৌন ক্ষমতা বাড়ে। এইধরনের ওষুধ মোটেও ব্যবহার করবেন না। এতে সাময়িক ক্ষমতা বাড়লেও, ক্রমশ আসলে ক্ষমতা কমতেই থাকবে।
যৌন মিলনে কেন আপনি ১ থেকে ৫ মিনিটের বেশি থাকতে পারেন না? এর কারণ এবং সমাধান

যৌন মিলন এক প্রকার খেলা এই খেলা এক্সপার্ট হতে হলে আপনাকে ভাল ভাবে এই বিষয়ে জানতে হবে। জানতে হবে কি ভাবে নিজেকে অধিক সময় মিলনের কাজে ধরে রাখা যায়। আমাদের দেশের মানুষ যৌন শিক্ষায় একেবারেই অজ্ঞ তাই এই বিষয়ে ভাল ধারনা না থাকায় অহর অহর সুখের সংসারে বয়ে যাচ্ছে ঝড়! অথচ আপনার একটু সচেতনতাই পারে আপানকে এই থেকে পরিত্রাণ দিতে।
আমাদের দেশের বেশির ভাগ পুরুষ যৌন মিলন বলতে যা বুঝেঃ যৌন মিলন বলতে তারা বুঝে শুধু পুরুষের যৌনাঙ্গ নারীর যৌনিতে প্রবেশ করানু এবং বীর্যপাত গঠিয়ে উঠে যাওয়া। ভুল! আপনার ধারনা একেবারেই ভুল। আপনার যৌন তৃপ্তি আছে আপনার বউয়ের কি তৃপ্তি নেই ? আসলে এই ভুলটাই করে থাকে আমাদের দেশের প্রায় ৮০% পুরুষ।
যৌন মিলন শুরু করবেন আদর দিয়ে। নারীর সারা শরীরে যৌন উত্তেজনা কাজ করে। তাই প্রথম ১৫-২০ মিনিট তাকে আদর করুন। আদর করতে করতে তাকে উত্তেজিত করুন। নিজেকে নিজে সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রন করুন হতাশা বা টেনশন নিয়ে যৌন মিলন করলে খুব দ্রুত বীর্যপাত গঠে যাবে। তাই মাথা ঠান্ডা রেখে যৌন মিলন করুন।
প্রথম মিলনে নারীরা অনেক ভয় পেয়ে থাকে এটা সম্পূর্ণ স্বাভাবিক ব্যাপার এবং প্রথম মিলনে বেশির ভাগ পুরুষের ১-২ মিনিট এর মধ্যে বীর্যপাত ঘটে এও স্বাভাবিক বেপার। তাই এই বিষয় গুলা নিয়ে একেবারে চিন্তিত হবে না। যদি দেখেন সব সময় যৌন মিলনে টাইম কম পাচ্ছেন তাহলে অবশ্যয় অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিবেন। মনে রাখবেন আপনার যৌন জীবনে অশান্তি মানেই আপনার জীবন তেজপাতা!
পুরুষ হলেই সে সহবাস করতে পারলেই সে একজন নারীকে পরিপূর্ন তৃপ্তি দিতে পারবে এটা বলা মুশকিল। কারন আমাদের দেশের শতকরা ৭৫ জন পুরুষ-ই নারী দেখলে পুলকিত তো হয় কিন্তু নারীর স্বানির্ধে গেলেই তার সারে বাংলা অবস্থা, যাকে বলে দোকান খুলতেই বেচা কেনা শেষ। হয়তো নারী তার কাপর হাটু অবধি উঠায় নি কিন্তু পুরুষের বির্যপাত হয়ে গেছে এমন হর হামেষাই হয়। আর এই সুযোগে কিছু অসাধু ঔষধ বিক্রেতা তাদের বিজ্ঞাপন দিয়ে আমাদের মাঝে বিক্রি করছে নানা রকম ক্ষতিকর ড্রাগ যা কিনা শুধু যৌন শক্তিকেই নষ্ট করে না একজন পুরুষের শরির কেও তিলে তিলে নষ্ট করে। আর তাই আমার অনুরোধ বাজারের ছরানো না না রকম ঔষধ বা ড্রাগ সেবন করে নিজের সুন্দর জীবন ও যৌবন কে শেষ করে দিবেন না

source : lifetips.com.bd

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *